প্রফেসর শঙ্কু ও এল ডোরাডো সিনেমা রিভিউ

প্রফেসর শঙ্কু ও এল ডোরাডো

প্রফেসর শঙ্কু ও এল ডোরাডো

মুভি রিভিউ :”প্রফেসর শঙ্কু ও এল ডোরাডো”

ক্যাটাগরি :সাইন্স ফিকশন ,ড্রামা

বাংলা সাহিত্যে পৃথিবীর সবচেয়ে স্বয়ং সম্পূর্ণ একটি সাহিত্য ।

বাংলা সাহিত্যের কিংবদন্তি সাহিত্যকর্ম গুলো সব সময় আমাদের উপমহাদেশের মানুষের জীবনযাত্রা ও জীবনের গল্প দিয়ে সাজানো।

আমাদের সাহিত্যের অন্যতম জনপ্রিয় একটি বৈজ্ঞানিক চরিত্র “প্রফেসর শঙ্কু ” কে নিয়ে আমার জানা মতে প্রথম রূপালী পর্দায় সিনেমা তৈরি হলো,”প্রফেসর শঙ্কু ও এল ডো রাডো”।এই চরিত্র টিকে জন্ম দিয়েছিলেন আমাদের বাঙালি জাতির গর্ব , অস্কারজয়ী সত্যজিৎ রায় ।

আমার কাছে অবাক লাগে সব সময় ! হলিউডের সাইন্স ফিকশন সিনেমা গুলো আমরা যতো সহজে গ্রহণ করি কিন্তু আমাদের নিজেদের সাইন্স ফিকশন সিনেমা গুলো আমরা এতো সহজে গ্রহণ করতে পারি না ।

অভিনয় :

“প্রফেসর  শঙ্কু “চরিত্রে অভিনয় করেছেন ধৃতিমান চ্যাটার্জি  এবং “নকুর বিশ্বাস” চরিত্রে অভিনয় করেছেন শুভাশিস মুখার্জি । তাদের অভিনয় নিয়ে আমার কোন প্রশ্ন নেই। অসাধারণ এবং অনবদ্য অভিনয় করেছেন তাঁরা। আমার একবারের জন্য মনে হয় নি এবার প্রথম “প্রফেসর শঙ্কু ” রূপালী পর্দায় আসলো ।

কাহিনী :

কাহিনী তেমন কিছু না।যারা “প্রফেসর শঙ্কু” এর গল্প গুলো পড়েছেন তাদের কাছে এই সিনেমাটির কাহিনি তেমন ভালো লাগবে না । তবে কাগজের চরিত্র আর সিনেমার চরিত্রে একটু পার্থক্য থাকায় ভালো লাগবে । সিনেমাটিতে প্রফেসর শঙ্কু এবং আমাদের বিশ্বের সবচেয়ে প্রচলিত মিথ “এল ডোরাডো (স্বর্ণের নগরী)” নিয়ে একটা বৈজ্ঞানিক অভিযান।

এই মুভির সবচেয়ে ভালো দিক ক্যামেরার কাজ। ডায়লগ ডেলিভারীর ক্ষেত্রে লীড ক্যারাক্টাররা আসলেই ভালো ছিলেন। তবে কিছু ক্ষেত্রে ইমোশনলেস আর স্লো মনে হয়েছে। ভিজুয়াল ইফেক্টস ও ভালো ছিলো তবে আরো ভাল করা যেত। সায়েন্টিফিক বিষয়গুলাকে একটু কমপ্লেক্স হিসেবে দেখানো হলে একদম পারফেক্ট হতো।

প্লট প্রথম দিকে ভালো মনে হচ্ছিলো,

স্টোরির বিল্ডিং আপ ভালো ছিল। তবে শেষটা উপন্যাসের সাথে মিলিয়ে করা হয়েছে ।যার জন্য তেমন একটা ফিনিশিং না হয়ে , সাধারণ বাঙালি সিনেমার মতো  শেষ করে দেওয়া  হয়েছে।যদি আরেকটু গুছিয়ে গল্পের মতো না করে একটা সিনেমার মতো করা হতো তবে ভালো হতো। সিনেমাটি তে অভিযান পুরোপুরি থাকলেও একটু একশন থাকলে আরো ভালো হতো।

 সবচেয়ে বাজে ছিলো নেগেটিভ চরিত্রের অভিনয়। আরো ভালো করা গেলে সিনেমা টি অন্য উচ্চতায় পৌঁছে যেত।

মনে হচ্ছে “প্রফেসর শঙ্কু ও এল ডো রাডো” সিনেমাটির  সিক্যুয়েল বের হতে পারে ।সিক্যুয়াল বের হলে আমরা নতুন একটি সিরিজ উপহার পাবো।

কোয়ারেন্টাইন কিংবা লকডাউনের এই বাজে সময় টা আনন্দময় করে কাটাতে “প্রফেসর শঙ্কু ও এল ডো রাডো ” দেখতে পারেন । নতুন একটি অভিজ্ঞতা হবে ।

প্রফেসর শঙ্কু ও এল ডোরাডো

রিভিউ লেখক :

সামিউল হক নিঝুম 

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ।

আমাদের আরো লেখা পড়তে চাইলে ক্লিক করুন

মজার বিজ্ঞান নিউজ পড়তে ক্লিক করুন এখানে

সামিউল হক

Hi, I am Sami, I have been writing on Jibhai.com for about 1 year, this is my site, and I am a part of Jibhai.com.

Leave a Comment