সেহরি না খেয়ে কি রোজা হয় ?

সেহরি না খেয়ে কি রোজা হবে কিনা?

সেহরি না খেয়ে কি রোজা হয় ?

সেহরি না খেলে কি রোজা হবে কিনা?

সেহরি না খেলেও রোযা শুদ্ধ হবে ইনশাআল্লাহ। তবে ইচ্ছাকৃত ভাবে তা পরিত্যাগ করা উচিৎ নয়। কেননা রোজা রাখার জন্য সেহরি খাওয়া সুন্নত (সুন্নতে মুআক্কাদা বা গুরুত্বপূর্ণ সুন্নত)। কেউ ইচ্ছাকৃত ভাবে তা বাদ দিলে সুন্নত পালনের সওয়াব থেকে বঞ্চিত হওয়ার পাশাপাশি আল্লাহর দেওয়া বিশেষ বরকত থেকেও বঞ্চিত হবে।

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন:

সেহরি না খেয়ে কি রোজা হয় আরবী হাদিস
সেহরি না খেয়ে কি রোজা হয়” এ সম্পর্কে হাদিস ছবি-১

تَسَحَّرُوا فَإِنَّ فِي السَّحُورِ بَرَكَةً

তোমরা সেহরি খাও, কারণ সেহরিতে বরকত রয়েছে।” (বুখারি ও মুসলিম)

◍ তিনি আরও বলেন:

সাহরী না খেয়ে রোজা হয় কিনা হাদিস
“সেহরি না খেয়ে কি রোজা হয়” এ সম্পর্কে হাদিস ছবি-২

السُّحَوُرُ كُلَّهُ بَرَكَةٌ فَلَا تَدَعُوهُ, وَلَوْ أَنْ يَجْرَعَ أَحَدُكُم جَرْعَةً مِنْ مَاءٍ, فَإِنَّ اللَّهَ –عَزَّ وَجَلَّ- وَمَلائِكَتَهُ يُصَلُّونَ عَلَى المُتَسَحِّرِينَ

“সেহরি খাওয়ায় বরকত রয়েছে। তাই তা তোমরা ছেড়ে দিয়ো না। এক ঢোক পানি দ্বারা হলেও সেহরি করে নাও। কেননা আল্লাহ রাব্বুল আলামিন ও ফেরেশতাগণ সেহরিতে অংশ গ্রহণকারীদের জন্য দোয়া করে থাকেন।” (মুসনাদে আহমদ, ইমাম মুনযেরী বলেন: এর সনদ শক্তিশালী-হাসান লি গাইরিহ)

◍ তিনি আরও বলেন:

সাহরি না খেয়ে রোজা হবে কি না সহীহ হাদিস
“সেহরি না খেয়ে কি রোজা হয়” -সহিহ ইবনে হিব্বান ছবি-৩

ﺗَﺴَﺤَّﺮُﻭْﺍ ﻭُﻟَﻮْ ﺑِﺠُﺮْﻋَﺔٍ ﻣِﻦْ ﻣَﺎﺀٍ

“সেহরি গ্রহণ করো যদিও এক ঢোক পানি দিয়েও হয়।” (সহিহ ইবনে হিব্বান)

◍ তিনি আরও বলেন,

ﺇِﻧَّﻬَﺎ ﺑَﺮَﻛَﺔٌ ﺃَﻋْﻄَﺎﻛُﻢُ ﺍﻟﻠﻪُ ﺇِﻳَّﺎﻫَﺎ ﻓَﻼَ ﺗَﺪَﻋُﻮْﻩُ

“নিশ্চয় সেহরি বরকত পূর্ণ যা আল্লাহ তাআলা তোমাদেরকে বিশেষভাবে দান করেছেন। অতএব তোমরা তা পরিত্যাগ করো না।” ( সহিহ নাসাঈ হা/২১৬১)

◍ অন্য হাদিসে এসেছে:

"সেহরি না খেলে কি রোজা হয়" এ সম্পর্কে হাদিস ছবি-৪
“সেহরি না খেয়ে কি রোজা হয়” এ সম্পর্কে হাদিস ছবি-৪

عَنْ عَمْرِو بْنِ الْعَاصِ أَنَّ رَسُولَ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قَالَ فَصْلُ مَا بَيْنَ صِيَامِنَا وَصِيَامِ أَهْلِ الْكِتَابِ أَكْلَةُ السَّحَرِ

আমর ইবনুল আস রা থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন: “আমাদের এবং আহলে কিতাব (ইহুদি-খৃষ্টানদের) রোজার মধ্যে পার্থক্য হল, সেহরি খাওয়া।” (অর্থাৎ তারা সেহরি খায় না আর আমরা খাই।) এ সব হাদিস থেকে ভোররাতে সেহরি খাওয়ার গুরুত্ব স্পষ্টভাবে প্রতিভাত হয়।

তবে কেউ যদি ঘুম থেকে উঠতে না পারার কারণে অথবা অন্য কোন কারণে সেহরি খেতে না পারে তাহলে না খেয়েই রোজা থাকতে হবে। এতে রোজার কোন ক্ষতি হবে না ইনশাআল্লাহ। আল্লাহ আলাম।

আরো পড়ুন

রোজার গুরুত্ব ও ফজিলত এবং করণীয়

রোজার নিয়ত

সাইয়েদুল ইস্তেগফার

সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০২১ ইসলামিক ফাউন্ডেশন pdf

Hi, I am Morshed Abdullah. I like to write about Islam. My favorite quote is “Always ask God for forgiveness because He knows you best.

Leave a Comment