লাফিং গ্যাস কি? কৃত্তিম হাস্যরহস্য অজানা নয়

কাঁদানো গ্যাস বা টিয়ার গ্যাসের সাথে আমরা মোটামুটি সবাই পরিচিত।এ গ্যাসের ব্যবহার পুলিশ বাহিনীতে প্রায়শঃই দেখা যায়। এ গ্যাস সাধারণতঃ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত পুলিশ কর্তৃক দাঙ্গা নিয়ন্ত্রন, বিক্ষুদ্ধ জনতাকে ছত্রভঙ্গের জন্যে ব্যবহার করে থাকে।তবে গ্যাস কেবল মানুষকে কাঁদাতে নয় হাসাতেও জানে!!

আজ আমরা পরিচিত হবো লাফিং গ্যাস বা নাইট্রাইস অক্সাইড  এর সাথে।

লাফিং গ্যাস কি

নাইট্রাস অক্সাইড, সাধারণ ভাবে লাফিং গ্যাস, NOS, নাইট্রাস বা নাইট্রো নামে পরিচিত। এটি একটি রাসায়নিক যৌগ যার সংকেত N
2O। কক্ষ তাপমাত্রায় এটি অদাহ্য বর্ণহীন, এই গ্যাসের ঈষৎ মিস্টি গন্ধ এবং স্বাদ রয়েছে। এটি নাট্রোজেনের একটি অক্সাইড।

লাফিং গ্যাসের রাসায়নিক নাম কি

লাফিং গ্যাস উৎপাদন
লাফিং গ্যাস উৎপাদন

লাফিং গ্যাস বা নাইট্রাইস অক্সাইড  হলো নাইট্রোজেন এর একটি মৌল যার সংকেত N2O।

১৭৭৫ সালে জোসেফ প্রিস্টলী প্রথম এই গ্যাসটি আবিষ্কার করেন আবার কারো মতে হামফ্রে ডেভী এই গ্যাসের আবিষ্কারক। তবে একটা ব্যাপার নিশ্চিত যে স্যার হামফ্রে ডেভীই প্রথম এই গ্যাস নিঃশ্বাসের সাথে গ্রহণ করেছিলেন।মৃদ্যু মিষ্টি গন্ধযুক্ত বর্ণহীন এই অক্সাইড মানুষ নিঃশ্বাসের সাথে গ্রহণ করলে হাসির উদ্রেক ঘটে।

স্তন্যপায়ী প্রাণী ও মানুষের মধ্যে নাইট্রিক অক্সাইড অনেক প্যাথলজিকাল এবং শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়াগুলির একটি সংকেত অনু ।

লাফিং গ্যাসের কাজ

লাফিং গ্যাস কি

হাসতে নাকি জানে না কেউ কে বলেছে ভাই , এই না দেখ কত হাসির খবর বলে যাই” ।

ছোট বেলায় এই কবিতা আমরা প্রায় সবাই পরেছি। মানুষকে হাসাতে লাফিং গ্যাস কাজ করে থাকে।তাছাড়া এই গ্যাস মানুষের ব্যাথা কমাতে সাহায্য করে বিধায় অনেক ডেনটিস্টরা দাঁতের চিকিৎসায় এটা ব্যবহার করে থাকে। এই গ্যাস গ্রহন করলে সেটা কয়েক সেকেন্ডের ভিতর আমাদের মস্তিষ্কে চলে যায় এবং মানুষের হাসির উদ্রেক ঘটে।মানব দেহে এই গ্যাসের স্থায়ীত্ব অল্প সময়ের হয়ে থাকে।ক্লোরোর্ফম আবিষ্কারের আগে একে মৃদু চেতনানাশক হিসাবে ব্যবহার করা হতো।

 লাফিং গ্যাসের ক্ষতিকর দিক

বর্তমানে নাইট্রাস অক্সাইডের সাথে সামান্য পরিমান অক্সিজেন যুক্ত করে একে নেশাদ্রব্য হিসাবেও ব্যবহার করা হয়ে থাকে কেননা বার বার গ্রহন করার কারণে সেটা আসক্তিতে পরিণত হয়।

অতিরিক্ত লাফিং গ্যাস গ্রহনের কারণে মস্তিষ্কের অক্সিজেন সরবারহ সাময়ীক ভাবে বাধাগ্রস্ত হয় যার ফলে স্নায়ুকোষের ক্ষতি সাধন হয়ে থাকে।এটা অনেক সময় মৃত্যুর কারণ ও হতে পারে।

ল্যাফিং গ্যাসের হাস্যরহস্য

Author :

Hossian Rakib

University of chittagong

Department of Anthropology

I am the Admin Of Jibhai.com and also part of jibhai.com

Leave a Comment