কিংবদন্তীরা অমর হোক। বিজয় দিবস অমর হোক।

বিজয় দিবস

৯ মাস ২৭০ দিন ৬৪৮০ ঘন্টা। ৩৮৮৮০০ মিনিট।

আর এই সময়টাতে লাশের সংখ্যা ৩০ লক্ষ। মানে কি দাড়ায়?

মানে হচ্ছে প্রত্যেকটি মাসে ৩৩৩৩৩৩ জন। প্রত্যেকটি দিনে ১১১১১ জন প্রত্যেকটি ঘন্টায় ৪৬২ জন প্রত্যেকটি মিনিটে ৭ জনের অধিক। কি মনে হয়,কতটুকু হত্যাজজ্ঞ আসলে চালানো সম্ভব। কতটুকু নিষ্ঠুরতা আর কতটা বর্বরতা।আর শরনার্থী শিবিরের মানবেতর জীবনের কারনে যে কয়জন মৃত্যুবরন করেছিলো তার তো কোন হিসাবই নেই।

৪ লাখের উপর নির্যাতিতা মা বোন

আসল সংখ্যাটা কি আসলেই ৪ লক্ষ।কত মা বোন ছিলেন সম্মানের ভয়ে তাদের বিষয়টা সামনেই আসে নাই। তাদের সেই হিসাবটা কে দিবে। একটা দেশের স্বাধীনতার জন্য আসলে কতটুকু মুল্য পরিশোধ করা সম্ভব। প্রশ্নটা যতটুকু সহজে করা সম্ভব,আসলে তার উত্তরটা কি এতটা সোজা। দেশে যদি এক মাসে যদি কখনো ৭ জন মানুষ খুন হয়,দেশে হুলস্থুল লেগে যায়। কখনো কি চিন্তা করেছেন সেই সময়টা,যে সময়টা নিয়ে আপনারা প্রশ্ন তুলেন,যে সময়টাকে নিয়ে অনেকে হাসি তামাশা করেন। সেই মানুষগুলো যারা বিনা অপরাধে মারা গেলো।

কখনো কি চিন্তা করেছেন সেই মানুষগুলোর কথা,সেই পরিবারের কথা

রক্ত যদি একটা দেশের স্বাধীনতার মুল্য হয়।আমরা সবচেয়ে বেশী সেই মুল্য দিয়েছি। বিজয়টা কতটুকু মুল্যবান এটা আপনাকে কেউ বলে বুঝাতে পারবেনা। এটা আপনাকে অনুধাবন করতে হবে। পারলে প্রত্যেকটা মুহুর্ত অনুভব করতে শিখুন।

সেই ভীতি,সেই নির্যাতন,সেই সাহস(যা মৃত্যুকেও ভয় পায় নাই), জাতির জনকের একটি কথা ছিলো, “যখন আমরা মরতে শিখেছি,তখন কেউ আমাদের মারতে পারবেনা” মৃত্যুকে হারিয়ে,সবচেয়ে বড় মুল্য দিয়েছি আমরা,তারপরে আমরা আজকের বিজয় পেয়েছি। প্রত্যেকটি বিজয় বড় অর্জন,প্রত্যেকটি বিজয় এক এক একটি কাব্যকাথা।আর আমাদের বীরেরা সেই কাব্যগাথার এক একজন কিংবদন্তী কবি। কিংবদন্তীরা অমর হোক। বিজয় দিবস অমর হোক।

বিজয় দিবস

আমাদের বিজয়
এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Comment

Don`t copy text!