প্রহসন কি

প্রহসন

প্রহসন কি ?

প্রহসন কাকে বলে

প্রহসন কী?

 কম বেশি আমরা সকলেই প্রহসন শব্দটার সাথে পরিচিত।হাস্যধর্মী ব্যঙ্গাত্মক স্বল্পদৈর্ঘ নাটিকাকে প্রহসন বলে।যেখানে সমাজ-বাস্তবতার নির্মম রূপ পরিহাসে রূপান্তর করা হয়।

প্রহসন অর্থ

প্রহসনের ইংরেজি প্রতিশব্দ হলো Farce(ফার্স)। ফার্স শব্দটি এসেছে লাতিন শব্দ ফোরসিয়ার থেকে যার অর্থ ভরাট।  বাংলায় প্রহসনের প্রতিশব্দ হলো হাস্যকর অভিনয় বা হাস্যরসোদ্দীপক নাটিকা। 

প্রহসনের বিকাশ 

প্রহসনের বিকাশ ঘটেছে  মধ্যযুগীয় গ্রীক সাহিত্যে।সেইসময়কার গ্রীক থিয়েটার গুলোতে প্রহসনের মতো নাটিকা মঞ্চস্থ হতো যার।যদিও  তখনকার বিষয়বস্তু ও উপস্থাপনা বর্তমান সময়ে চেয়ে ভিন্ন ছিল তবে উদ্দেশ্য ছিল একই আর তা হলো হাস্যরসাত্মক ভাবে সমাজের অজাচার, অনিয়ম গুলো বিনোদনের মাধ্যমে তুলে ধরা, মানুষের মনের কথা প্রকাশ করা।এর ফলে ক্রমেই সাধারণ মানুষের কাছে প্রহসন জনপ্রিয় হয়ে ওঠে।  পরবর্তীকালে মোটামুটিভাবে সব ভাষার সাহিত্যেই প্রহসনের চর্চা শুরু হয়।

ফ্রান্সে প্রথম সং,মূকাভিনয়, হাস্যরসাত্মক নাটকের জন্য ফার্স শব্দটি ব্যবহার করা হয় ।  ফরাসি প্রহসন “ল্য গাসো এ লাভোল্গ”(১২৬৬) কে সবচেয়ে  পুরানো প্রহসন মনে করা হয়।”লা ফার্স দ্য মাইত্র পাতেলা”(১৪৭০) ছিল মধ্যযুগের একটি বিখ্যাত ফরাসি প্রহসন।এছাড়াও আছে “দ্য লায়ার” (১৬৪৪),”দ্য মাইাজার”(১৬৬৮)

ষোড়শ শতাব্দীতে ইংল্যান্ডের জন হেইডের দুই অংকের নাটকে প্রহসনের বৈশিষ্ট্য লক্ষ্য করা যায়। উইলিয়াম শেক্সপিয়ারের ছোট নাটকেও প্রহসনের ব্যবহার লক্ষ্য করা যায়। 

১৯৭০ সালে ৫ই ডিসেম্বর ইতালিতে প্রথমবার মঞ্চায়িত করা হয় দারিও ফো এর “মোর্তে আক্সিদেন্তালে দি উন আনার্চিকো”

ভারতবর্ষে প্রহসনের শুরু রামনারায়ণ তর্করত্নের “কুলীনকুলসর্নস্বকর্ম ” (১৮৫৪)এর মাধ্যমে। যদিও মাইকেল মধুসূদন দত্ত এর”একেই কি বলে সভ্যতা” (১৯৬০)সার্থক বাংলা প্রহসন হিসেবে গণ্য করা হয়।

প্রহসন এর উদ্দেশ্য 

প্রহসন কি কাকে বলে, উদ্দ্যেশ্য
প্রহসন

প্রহসনের প্রধান উদ্দেশ্য হলো হাস্যরস,পরিহাস,ব্যঙ্গ-বিদ্রুপের মাধ্যমে সমাজের নানা অনিয়ম, অনাচার, অন্যায়,অনৈতিকতা,ভণ্ডামি, কুসংস্কার,ধর্মীয় গোঁড়ামি, অজ্ঞতা ইত্যাদি মানুষের সামনে তুলে ধরা। সমাজের সকল অজাচারকে অভিনয়ের মাধ্যমে কটাক্ষ করা। সহায় হীন মানুষের যাপিত জীবনের কষ্টগুলোর জন্য নাটকীয় ভাষায় প্রতিবাদ করা।

প্রহসনের বৈশিষ্ট্য 

বৈশিষ্ট্যগত ভাবে প্রহসন একপ্রকার নাটক হলেও নাটকের চেয়ে ভিন্ন। 

প্রহসন সাধারণত সংক্ষিপ্ত, একটি /দুটি অঙ্কে শেষ করা হয়। নাটকের মত দীর্ঘ না।সমসাময়িক সামাজিক অসংগতি গুলো হাস্যরসাত্মক ভাবে উপস্থাপন করা হয়। এর সংলাপ গুলো সহজ-সাবলীর, হাস্যকর,কদর্য হলেও ভাবার্থ হয় গুরুগম্ভীর, অর্থপূর্ণ। প্রহসনের চরিত্র গুলো হয় স্বতন্ত্র অথচ সামাজিক নিষ্পেষণের প্রতীক।

নাটক ও প্রহসনের পার্থক্য

নাটক ও প্রহসন উভয়ই মানুষকে বিনোদন দেয়। কিন্তু নাটক ও প্রহসনের মধ্যে বেশ কিছু  পার্থক্য পরিলক্ষিত হয়।

  • নাটকের আয়তন নির্দিষ্ট না হলেও প্রহসন হয় ক্ষুদ্রপরিসরের।
  • নাটক বিনোদন দেয়,এর গুরুভাব থাকতে পারি আবার নাও থাকতে পারে কিন্তু প্রহসনের গুরুভাব থাকে।
  • নাটকের সংলাপ সাধারণত হাস্য-পরিহাসে পূর্ণ থাকে না কিন্তু প্রহসনে থাকে। প্রহসনের সংলাপ কিছুটা কদর্য।
  • প্রহসনের কাহিনি সমাজের তিক্ত বাস্তবতা তুলে ধরে নাটকে তা সব সময় হয় না।

উল্লেখ্য

প্রহসন কমেডি ধাচের হলেও কমেডি নয়।

বাংলা সাহিত্যে প্রহসন

সংস্কৃত থেকে বাংলাভাষায় প্রহসনের উদ্ভব হয়েছে।  বাংলা সাহিত্যে প্রহসনের বিকাশ উনবিংশ শতাব্দীতে  রামরামায়ণ তর্করত্নের মাধ্যমে। তার”কুলীনকুলসর্বস্ব” এর মধ্যে প্রহসনের উপাদান খুজে পাওয়া যায়।সেই সময়ের হিন্দু সমাজের কৌলিন্য প্রথার কিছু সমস্যা নিয়ে তিনি এটি রচনা করেন।অনেকে এটিকে প্রথম সার্থক প্রহসন মনে করলেও মাইকেল মধুসূদন দত্ত এর “একেই কি বলে সভ্যতা” (১৮৬০)কে সার্থক বাংলা প্রহসন ধরা হয়।

এছাড়াও, দীনবন্ধু মিত্র এর” বিয়ে পাগলা বুড়ো “(১৮৬৬),সধবার একাদশী(১৮৬৬), জামাইবারিক(১৮৭২)।অমৃতলাল বসুর চাটুয্যে বাড়ুজ্যে(১৮৮৪),বিবাহ বিভ্রাট(১৮৮৪),বাবু (১৮৯৩), গিরিশচন্দ্র ঘোষের গোপন চুম্বন (১৮৭৮) ভোটমঙ্গল(১৮৮২) বেল্লিক বাজার(১৮৮৬),রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গোড়ায় গলদ(১৮৯২),বৈকুন্ঠের খাতা(১৮৯৭)

ইত্যাদি বাংলা সাহিত্যের উল্লেখ যোগ্য প্রহসন

পরিশেষে 

বর্তমানে বাংলা সাহিত্য অনেক দূরে এগিয়ে গেছে। তবে আধুনিক বাংলা সাহিত্যে কিছু মূকাভিনয় ছাড়া  প্রহসনের চর্চা তেমন পরিলক্ষিত হয় না। বিনেদনের মাধ্যমে সমাজের অসংগতি তুলে ধরতে প্রহসনের বিকল্প নেই। 

তামান্না আক্তার

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

আরো পড়ুন

বাজেট বিষয়ে প্রশ্ন এবং উত্তরঃ এডমিশন টেস্ট, বিসিএস, সাধারন জ্ঞান

সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ প্রথম সব এডমিশন টেস্ট, বিসিএস

পদ্মা সেতু নিয়ে যেসব প্রশ্ন হতে পারে; এডমিশন টেস্ট

Hi, I am Tamanna, I have been writing on Jibhai for about 1 year, this is my site, and I am a part of Jibhai. Thanks

Leave a Comment