ধূমপানের ক্ষতিকর দিক সমূহ।। সিগারেটের ২৪টি ক্ষতিকর দিক

By Taslima Mitu

ধূমপানের ক্ষতি

ধূমপানের শারীরিক ক্ষতি সমূহ , ধূমপানে অপকারিতা সমূহ ,

সিগারেটের ক্ষতিকর দিক

ধূমপানের ২৪টি ক্ষতিকর দিক


১. ধূমপানের ফলে শরীরে তাপ বৃদ্ধি,প্রদাহ,জ্বালাপোড়া ইত্যাদি দীর্ঘমেয়াদি রোগ -ব্যাধি দেখা যায়।
২. ধূমপানের কারনে মাল্টিপল স্ক্লেরোসিস বা মস্তিষ্ক এবং মেরুদন্ডের সমস্যা দেখা দেয়।
৩. ক্রনিক বাইনিটিস বা দীর্ঘমেয়াদী নাকের ইনফেকশন হয়।
৪. উচ্চরক্ত চাপের কারন হয়ে দাড়ায়।
৫. অতিরিক্ত ধূমপানের ফলে বয়সে তুলনায় বেশি বয়স্ক দেখায়।
৬. ধূমপানের কারনে ফুসফুস, মূত্রথলি,কিডনি, কন্ঠনালীতে ক্যান্সার হয়ে থাকে।
৭. হার্টের সাথে সম্পৃক্ত ধমনিগুলো ব্লক হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।
৮. অতিরিক্ত ধুমপানের ফলে দৃষ্টিশক্তি লোপ পায়।
৯. যকৃত শুকিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।
১০. গর্ভপাত কিংবা অপরিনত শিশু জন্মাতে পারে।  
১১. ধূমপানকারী ব্যক্তি দেশ ও সমাজের কাছে একজন ঘৃণিত ব্যক্তি হিসেবে বিবেচিত হয়।
১২. ধূমপানের ফলে যৌনশক্তি বিলুপ্ত হতে থাকে।
১৩. ৯৫ শতাংশ শিশুর শরীরের নিকোটিন পাওয়া যায়।
১৪. ইদ্রিয় ক্ষমতা দুর্বল করে দেয়। ঘ্রাণ নেওয়া এবং স্বাদ গ্রহনের ক্ষমতা হারিয়ে ফেলে।
১৫. ধূমপায়ী ব্যক্তি সবসময় দুর্বলতা অনুভব করে।
১৬. হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে পড়ে।
১৭. স্মরণশক্তি কমিয়ে দেয় এবং মনোবল দুর্বল হয়ে পড়ে।
১৮. মুত্রথলি যক্ষ্মায় আক্রান্ত হয় এবং প্রস্রাব বিষাক্ত হয়ে যায়।
১৯. ধূমপায়ীরা অধুমপায়ীদের থেকে ৫-৭ বছর কম বাঁচে।
২০. ধূমপান মানুষের অপমৃত্যু ঘটায়।
২১. ধূমপানের কারনে রিউমাটরেড় আথ্রাইটিসের ঝুঁকি বহুগুণে বাড়িয়ে দেয়।
২২. ধূমপানের প্রভাবে চুল পড়া শুরু হয়।
২৩. বিষ খেলে যেমন মানুষের মৃত্যু হয়,তেমনি নিকোটিন গ্রহণ করলেও মানুষ মারা যায়।
২৪. ধূমপায়ী মহিলাদের মেনোপজ সময়ের অন্তত দুই বছর আগে হয়।

👉👉👉নিয়মিত স্বাস্থ খবর পেতে ভিজিট করুন

ধূমপানের ক্ষতি
ধূমপানের ক্ষতি

ইসলামের শরীয়ত অনুযায়ী ধূমপান/সিগারেট ৩টি কারনে হারাম


(১).আল্লাহ্ তা’অালা কুরআনুলকারীমে বলেছেন, ও মানব আর দানব তোমরা নিজে নিজেকে ধ্বংস করবে না।যেমন – নিজেই নিজের ক্ষতি করা,আত্মহত্যা করা।আর সিগারেট দ্বারা যেহেতু ফুসফুসের ক্ষতি হয়,ক্যান্সার হয় এবং মৃত্যু ঘটায়।তাই কুরআনে এটাকে নিষেধ করা হয়েছে।


(২).এই পৃথিবীতে সকল মানুষরা একমত ধুমপানের দ্বারা কোন ব্যক্তির কল্যাণ হয় না বরং অপকার হয়।আর যে কাজে উপকার না হয় সে কাজের নাম অপচয়। আর অপচয়কারীরা শয়তানের ভাই।

(৩). এর দ্বারা পরিবেশের  ক্ষতি হয়।যদি এক বাচ্চার সামনে এই সিগারেটের ধোঁয়া ছারে অথবা আশেপাশে যে কেউ থাকে যে ধুমপান করে তার যেমন ক্ষতি হয় পাশের জনেরও তেমনি ক্ষতি হয়।অন্যের জীবনে ক্ষতি করে যে সে অন্যের অধিকার নষ্ট করে।আর অন্যের অধিকার নষ্ট করা ইবাদত ধ্বংসে কারন।অধিকার প্রতিষ্ঠিত করার নাম ইবাদত আর অধিকার ধ্বংস করার নাম কেয়ানত।
এই ৩ টি কারনে শরীয় দৃষ্টিকোন থেকে ধুমপান হারাম।

ধূমপায়ী ব্যক্তিরা নিজেকে যেমন মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে আবার আরেকজনের জীবনকেও বিপদের মুখে নিচ্ছে। অতএব আসুন আমরা সকলে মিলে আমাদের সমাজকে ধূমপানমুক্ত করার চেষ্টা করি।

মিতু আক্তার

আরো পড়ুন

পুনরায় গরম করে খেলে হতে পারে মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকি

Leave a Comment