গান্ধী পোকা কেন বাজে গন্ধ ছড়ায়?

গান্ধী পোকা দূর করার উপায়

আমাদের পরিবেশের স্বাভাবিক ঘটনার মধ্যে যা দেখি তার মধ্যে গান্ধী পোকা কেউ চিনেনা এমন কেউ নেই। শহর অঞ্চলে এ পোকা একটু কম থাকলেও আপনার বসবাস যদি গ্রামে হয়ে থাকে তাহলে আপনার প্রাত্যহিক জীবনে বিরক্তির কারণ যে এ পোকা হয়নি এটা অস্বিকার করতে পারবেন না। আজকের কথা গান্ধীপোকাকে নিয়ে, আজ আমরা জানবো, কি এই পোকা, কেন এই বাজে গন্ধ ছড়ায়, এর পেছনে রহস্য কি, চলুন বিষয়টা জেনে নেই

গান্ধী একটি তীব্র দুর্গন্ধযুক্ত পোকার নাম। যার কামড় খাওয়ায় দরকার নেই, গায়ে এসে বসলেই গায়ে ক্ষত হয়ে যাবে

গান্ধীপোকার ইংরেজি নাম Stink Bug(যার অর্থ দুর্গন্ধময় পোকা)।

গান্ধী পোকা ছবি-১ বৈজ্ঞানিক নাম
গান্ধী পোকা ছবি-১

গান্ধী পোকার বৈজ্ঞানিক নাম


১.Oebalus Pugnax(ঘাস জাতীয় উদ্ভিদে গান্ধীপোকা)
২.Leptocorisa Oratoria(ধানের গান্ধীপোকা)
৩.Helopeltis Collaris(চা পাতার গান্ধীপোকা)


এদের জীবনকাল ৬০-৯০ দিন।

জীবনচক্রের স্তর চারটি।এবং বছরে পাঁচটি জেনারেশন দিতে পারে।এদের আরেকটি অনন্য বৈশিষ্ট্য হলো -এটি জঘন্য রকমের বিশ্রী গন্ধ ছড়ায়।

কেন এই গান্ধীপোকা বিশ্রী বা বাজে ছড়ায়?

গান্ধী পোকা

এর মূল কারণ আত্মরক্ষার পদ্ধতি বা Self defence mechanism । অর্থ্যাৎ গান্ধীপোকা নিজেকে রক্ষা করার জন্য বাজে গন্ধ ছড়ায়। এই প্রতিকূল পরিবেশে নিজেকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য প্রতিটি জীবকূল কোন না কোন পদ্ধতি অবলম্বন করে থাকে।যেমন-সাপ নিজেকে রক্ষা করার জন্য ফণা তুলে,অক্টোপাস কালি ছুড়ে দেয় শত্রুকে দমন করতে,কেউ শিং নিয়ে তেড়ে আসে,কেউ কামড় দিয়ে বিষ ঢুকিয়ে দেয়,আবার কেউ রং পরিবর্তন করে নিজেকে লুকিয়ে রাখে।এরকম হাজারটা পদ্ধতি অবলম্বন করে থাকে প্রত্যেকটা প্রাণী। ঠিক তেমনি টিকটিকি, ব্যাঙ বা অন্যান্য পাখিরা ধরতে আসে  তখন গান্ধীপোকাও নিজেকে রক্ষা করার জন্য গন্ধের গ্যাস নির্গমন করে।বিপদে পড়লেই গান্ধীপোকা এমনটা করে।আর এই বিশ্রী গন্ধ শুকে বিরক্ত হয়ে শত্রু পক্ষ চলে যায়।এই বাজে গন্ধই গান্ধীপোকার একমাত্র আত্মরক্ষার উপায়।

আবার প্রজননকালেও পুরুষ গান্ধীপোকা গন্ধ ছড়ায় স্ত্রী গান্ধীপোকাকে আকৃষ্ট করার জন্য।

এতক্ষণ এত কিছু জানলাম, এবার এর থেকে রক্ষার সহজ কিছু তথ্য জেনে নিই চলুন

গান্ধীপোকার উপদ্রব বাড়লে করণীয় বা প্রতিকার

গান্ধী পোকা
গান্ধী পোকা ছবি-২
  • হাত জালের সাহায্যে গান্ধীপোকা সংগ্রহ করে মেরে ফেলা।
  • আলোক ফাঁদ ব্যবহার করে।
  • এদের প্রকোপ বেশি দেখা দিলে আইসোপ্রোকার্ব/এমআইপিসি,কার্বারিল,ম্যালথিয়ন নামক কীটনাশক প্রয়োগ করে দমনের ব্যবস্থা নিতে পারেন।
  • কীটনাশক অবশ্যই বিকেল বেলা প্রয়োগ করতে হবে।

কীটনাশক ব্যবহার ছাড়াও গান্ধীপোকা দমনের উপায়


লেবুর রসের সঙ্গে পানি মিশিয়ে গাছে স্প্রে করতে পারেন। সপ্তাহে ২দিন।
এছাড়াও সামন্য পানিতে ডিটারজেন্ট মিশিয়ে স্প্রে করতে পারেন। তবে পরদিন সকালে পানি দিয়ে পাতা পরিষ্কার করে দিতে হবে।এভাবে মাসে ৪/৫ বার করলেই গান্ধীপোকা চলে যাবে।

Hi, I am Mitu,  I have been writing on Jibhai for about 1 year, this is our site, and I am a part of Jibhai. Thanks

Leave a Comment