আগষ্ট ১৪ ওয়েব-সিরিজ সমালোচনা নাকি প্রশংসা

আগষ্ট-১৪

Bengali Web Series 2020

আগষ্ট ১৪ ওয়েবসিরিজ পর্যালোচনা

ওয়েভ সিরিজ রিভিউঃ আগষ্ট ১৪ (২০২০)

 IMDB রেটিংঃ৮

রিলিজের তারিখঃ মে ২৮,২০২০

ক্যাটাগরিঃ ক্রাইম,থ্রিলার

নির্মাতাঃ শিহাব শাহীন

নির্মাতা প্রতিষ্ঠানঃ Binge

অভিনয়শিল্পীঃ তাসনুভা তিশা,শতাব্দী ওয়াদুদ,

শহীদুজ্জামান সেলিম,মনিরা মিঠু,সায়েদ জামান শাওন প্রমুখ। 

মানুষের ভিতরে দুটি সত্ত্বা রয়েছেঃ ভালো এবং খারাপ। কিন্তু মনুষ্যজাতি ইচ্ছা বা অনিচ্ছায় খারাপ সত্ত্বাটাকেই বেশি প্রশয় দিয়ে ফেলে। 

একটা সময় এসে তখন অনেক বেশি দেরি হয়ে যায়, যখন খারাপ সত্ত্বাটাকে প্রশয় দিতে দিতে নিজের অজান্তেই অনেক বড় ভুল করে ফেলে। 

আর এমন করেই ভুল পথে পা বাড়িয়ে নিজের জন্মদাতা পিতা- মাতাকে খুব পরিকল্পনার সাথে নিশংসভাবে খুন করে “আগষ্ট ১৪” ওয়েবসিরিজটির প্রধান চরিত্র তুশি। ভাবতেই আমার গায়ের লোম দাঁড়িয়ে যাচ্ছে বারবার। 

আগষ্ট ১৪ এর কাহিনি বাংলাদেশে কয়েক বছর  আগে ঘটে যাওয়া এক চাঞ্চল্যকর জোড়া খুনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে রচিত হয়েছে 

যেখানে ঢাকায় ২০১৩ সালের ১৪ আগষ্ট,  ঐশী মাদকাসক্ত হয়ে  বেপরোয়া ভাবে কফির সাথে ঘুমের  ঔষধ মিশিয়ে অনেক নির্মম, নৃশংসভাবে তার নিজের মা-বাবাকে খুন করে।ঐশীর এরুপ পাশবিক হত্যাকান্ডে গোটা বাংলাদেশ নির্বাক হয়ে গিয়েছিলো। ঐশীর এমন পাশবিক আচরণ এর জন্যে সত্যিই কি সে দায়ী ছিলো নাকি তার পরিবার? জানতে হলে আপনাকে অবশ্যই দেখতে হবে দারুণ এই ওয়েবসিরিজটি।নির্মাতা শিহাব শাহীন  তার এই চমকপ্রদ, লোমহর্ষক সৃষ্টি দিয়ে বাংলাদেশের ওয়েবসিরিজের   নতুন দ্বার উন্মোচোন করেছেন। 

আগষ্ট ১৪ সিরিজটিতে ৬টি পর্ব রয়েছে

প্রতিটি পর্ব নির্মাতা খুবই আকর্ষণীয়ভাবে এবং দর্শকদের মধ্যে জিঞ্জাসুক ইচ্ছা সৃষ্টি হবে এরুপভাবে নির্মাণ করেছেন। যেহেতু এই হত্যাকান্ডটি খুবই তোলপাড় সৃষ্টি করেছিলো বাংলাদেশে, তাই এই কাহিনী কমবেশি সবার মনে আছে। যার ফলে নির্মাতা শিহাব শাহীন  দর্শকের আগ্রহের প্রতি দৃষ্টিপাত করে কিছুটা ভিন্নতা এনেছে। যেখানে ১ম পর্ব শুরু হয়েছে হত্যাকান্ডের পরের কাহিনী ও তদন্ত দিয়ে। 

রক্তমাখা কাপড় পরেই সে পটেটো ওয়েজ ভেজে খায়

মায়ের কন্ঠ নকল করে বাড়ির কেয়ারটেকারকে বোকা বানিয়ে, তুশি ভোরবেলা বাড়ী থেকে বেরিয়ে যায় কোনো এক জিমির সন্ধানে। এভাবে ঘটনাপ্রবাহ চলতে থাকে। তুশি বিভিন্ন অসৎ উপায়ে ও কৌশলে কিছুদিন যাপন করে। তার একমাত্র উদেশ্য থাকে কিভাবে বাংলাদেশ থেকে পালিয়ে ভারতে চলে যাওয়া যায়। এই ওয়েবসিরিজে পরিচালক খুব নিপুণভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন কিভাবে একটা খুনির ভিতরে মনস্তাত্ত্বিক জটিলতা চলতে থাকে। একটা সময় এসে তুশি আত্মসমর্পণ করে। কিন্তু সে প্রথমদিকে খুনের সাথে নিজের সম্পৃক্ততা অস্বীকার করলেও পরবর্তীতে গোয়েন্দা শতাব্দী ওয়াদুদ এর সাথে  টানটান   উত্তেজনা নিয়ে   চোর-পুলিশ খেলায় হেরে যায় তুশি । অবশেষে তুশি বাধ্য হয় সব স্বীকার করতে। 

এরপর গল্পটি ফ্লাশব্যাকে চলে যায়। তুশি একে একে সবকিছু বলতে থাকে- কিভাবে সে পর্নোগ্রাফিতে আসক্ত হয়ে মাদকাসক্ত হয় এবং যৌনতাকে,বেহায়াপনাকে নিজের সঙ্গী করে নেয়। আর এগুলোকেই  সে তার স্বাধীনতা মনে করতে থাকে। কিন্তু তার এই স্বাধীনতায় বাঁধা   দেয়ায় তুশি তার মা-বাবাকে কিভাবে খুন করে তার বর্ণনা দিতে থাকে। 

আগষ্ট-১৪ সবচেয়ে লোমহর্ষক পর্ব ছিলো পর্ব-৬

আমি নিজেই  শিহরিত হয়ে  যাই পর্বটি দেখে। নিজের চোখকেই  বিশ্বাস  হচ্ছিল না এই পৃথিবীতে এতো পাশবিকতার রুপ রয়েছে।স্বাধীনতা মানে স্বেচ্ছাচারিতা বা বেহায়াপনা নয়। কিন্তু, গল্পের নায়িকা তাসনুভা তিশা, যিনি তুশি চরিত্রে অভিনয় করেছেন তার কাছে দর্শক স্বাধীনতার অপব্যাখা দেখতে পাবে।  

পরিশেষে বলবো, বাংলাদেশের প্রোডাকশন হিসেবে এই সিরিজটি ছিলো অসাধারণ। তাসনুভা তিশা,  শতাব্দী ওয়াদুদ,  শহীদুজ্জামান সেলিম, মনিরা মিঠু এরা প্রত্যেকেই খুবই ভালো অভিনয় করেছে।  যার ফলে আমি নিজেই হারিয়ে যাই গল্পটির মাঝে। মনে হচ্ছিলো যেন 

বাস্তব জীবনের খুনি  ঐশীকেই দেখছি। আশা করছি, ভবিষ্যতে বাংলাদেশের ওয়েবসিরিজগুলো এভাবেই দর্শকদের আশা – আকাঙ্খা পুরনোর পাশাপাশি বিশ্বের বুকে বাংলাদেশের বিনোদন প্লাটফর্মকে আরো শানিত করবে। 

বি.দ্রঃ “আগষ্ট ১৪” ওয়েবসিরিজটি ১৮+ দের জন্যে। এতে কিছু অশালীন দৃশ্য ও যৌনতার ছাপ রয়েছে। যদিও এগুলো গল্পটির জন্যে খুবই প্রাসঙ্গিক। তাই একা দেখার চেষ্টা করবেন। পরিবারের সাথে দেখলে স্কিপ করুন।

ধন্যবাদ

সুমাইয়া আক্তার

চট্টগ্রাম কলেজ  

আরো দেখুন

Raat Baaki Hai(রাত বাকি হ্যায়)

CONTRACT Web series 2021

রবিন্দ্রনাথ এখানে কখনো খেতে আসেনি

তানসেনের তানপুরা ওয়েবসিরিজ পর্যালোচনা

Hi, I am Sumaia, I have been writing on Jibhai for about 1 year, this is my site, and I am a part of Jibhai. Thanks

Leave a Comment